বৃষ্টি রংয়ের লিপস্টিক অথবা অন্যান্য গল্প

তোমার স্মৃতি আমি জানিনা অপরাজিতা।
অঝোর বৃষ্টিতে,
অঢেল আনন্দে
ভিজেছিলে তুমি।

আর আমিতো জন্মের পর
ঠিক ততবার বৃষ্টিতে ভিজেছি,
যতবার বৃষ্টি হয়েছে।

অঝোর বৃষ্টিতে তুমি ভিজেছিলে,
বৃষ্টির ফোঁটা ভিজিয়ে দিচ্ছিলো তোমার চিবুক,
ঝরে পড়েছিল পাগলাটে উল্লাসে,

সেদিন, সেই একদিনই
আমার বৃষ্টি হতে ইচ্ছে করেছিল।

তোমার বিমান ছুঁয়ে যাচ্ছে কলকাতার রানওয়ে...ভাবলেই, রোব্বারের ছুটি হয়ে একটা সাত-রংয়ের ঘুড়ি উড়তে থাকে এই শহরের আকাশে, আর ছড়াতে থাকে নির্জনতার লিফলেট!

এমন যদি নাও হয়, না-আসে বিমান, অন্তত একটা চিঠিও তো আসতে পারে আমাদের পুরোনো ডাকবাক্সে! এবং চিঠি জুড়ে জেগে থাকবে হেমন্তের সন্ধে। অল্প অল্প কুয়াশায় বেজে উঠবে অনন্তের অর্গান...

তাও যদি না হয়, নিদেনপক্ষে তিন শব্দের একটা এস.এম.এস! আসতে পারে না? দেখতে, সেই ছোট্ট মেসেজ কীভাবে হাওয়ায় তুফান তুলে রেসকোর্স-এ জিতে নিত সমস্ত বাজি! আর সেদিন কলকাতার মাঝরাত তোমার দু-ঠোঁটে ঠিক ছুঁইয়ে দিত বৃষ্টি রংয়ের লিপস্টিক।

আর যদি ধরো, এই সব কোনও কিছুই না হয়, তাহলে গ্রাণ্ড ক্যানিয়নের কাছে গিয়ে দাঁড়িও। স্পষ্ট দেখতে পাবে, খাদের নীচে একটা লোক ক্রুশকাঠ কাঁধে নিঃশব্দে চলে যাচ্ছে অন্ধকারে।

নাহ, আর ফিরেও তাকাচ্ছে না পিছনের দিকে। পাথুরে ধুলোয় শুধু পড়ে থাকছে এক যান্ত্রিক স্বর ...



Powered by Blogger.