16 October 2015

দুরের তুমি

আমি বসেছিলাম দক্ষিণে ব্রিজের এক কোণে।
তারা জ্বলা ধূসর তিমিরে অষ্টমীর চাঁদ
তখনো দৃষ্টির আড়ালে।

চারি দিকে শন্ শন্ নিথর নিরবতা।

তখনো কয়েকটি ব্যস্ত পাখি উড়ে যাচ্ছিল
বিলম্বিত নীড়ে ফেরার অসস্হিতে।
জোনাকগুলো তখনো চালু করেনি
তাদের নিজস্ব আলোর বাগান।

আমার সামনে পৌষের খালি মাঠ।

বিলের পানিও শুকিয়ে গেছে প্রায়।
তার পাশেই ছোট সেই বাগান।

যে বাগান সযত্নে লালিত করেছি
এতগুলো বছর স্মৃতির আঙ্গিনায়।

একটা সময় ছিলো
যখন রোজ বিকেলে আড্ডা বসতো।
ভালোবাসা ছড়িয়ে পড়তো
প্রজাপতির পাখায় পাখায়।
আমি রোজ বিকেলে বসে থাকতাম
তোমাকে দেখার আকূলতায়।

কখনো দেখে কখনো না দেখেই
পেরিয়ে যেত অপেক্ষার দীর্ঘ সময়।

আজ তুমি কতো দূরে...।

আমি চাইলেও দেখতে পাবোনা তোমায়।
আকাশের সাতটি তারা
সাতটি ফুল হয়ে ফুটেছে আকাশ বাগানে।
অষ্টমীর চাঁদ পশ্চিম আকাশে অস্ত প্রায়।

ঘাসফুলেদের সাথে

তুমি সারাক্ষন খুঁজে গেছো দুপুর সন্ধ্যে বেলায়, সময় দাওনি ঘাস ফুলেদের। লিলুয়া বাতাস হয়ে ছুয়ে গেছো দূর আরো দূর বেপাড়ায়… ফিরে গেছে সে নদী...